এই গ্রামের সবাই ক’রো’নায় আ’ক্রা’ন্ত

প্রাঙ্ঘাতি করোনা ভাইরাস মহামারিতে কমবেশি আক্রান্ত পৃথিবীর প্রায় প্রতিটি দেশের প্রতিটি অলিগলি। প্রত্যেক এলাকাতেই আক্রান্ত মানুষের পাশাপাশি সুস্থও আছেন অনেকে।

কিন্তু ভারতের হিমাচাল প্রদেশের একটি গ্রামের একজন বাসিন্দা ছাড়া সবাই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে গিয়ে তারা সবাই আক্রান্ত হন।

ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, করোনাভাইরাসে ভীষণ বিপর্যস্ত হিমাচলের লাহল জেলা। আর সেই জেলারই একটি গ্রাম থোরাং। ভূষণ ঠাকুর (৫২) নামে এক বাসিন্দা ছাড়া সেখানকার ৪২ অধিবাসীর ৪১ জনই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। আর এ ঘটনার জেরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে আশপাশের এলাকায়।

জানা যায়, গত ৩০ জুন প্রথমবারের মতো লাহলে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হয়। ধীরে ধীরে অনেকেই সংক্রমিত হন।

কিন্তু পুরো থোরাং গ্রামে কীভাবে সংক্রমণ ছড়াল? ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, সম্প্রতি একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে পুরো গ্রামের মানুষ একত্রিত হয়েছিলেন। স্থানীয় প্রশাসনের দাবি, এর ফলেই গ্রামের প্রতিটি বাড়িতে করোনা ছড়িয়ে পড়ে।

তাহলে একজন কীভাবে সংক্রমণ এড়ালেন? ভূষণ নামে ওই ব্যক্তি জানান, ‘ভাগ্যক্রমেই রক্ষা পেয়েছি। বাড়ির বাকি পাঁচজনই করোনায় আক্রান্ত। ওদের রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর থেকেই আলাদা ঘরে থাকছি। গত চারদিন ধরে নিজেই রান্না করে খাচ্ছি। সেই সঙ্গে স্যানিটাইজ করা, মাস্ক পরার মতো সবধরনরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছি।’

এদিকে, ইতোমধ্যে ওই জেলায় পর্যটকদের ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। বৃহস্পতিবার থেকে থোরাং গ্রামে পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞাও জারি করেছে প্রশাসন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*